গন্ডার শিং চোরাচালান: কাজিরাঙ্গা জাতীয় উদ্যানের আরও দুই অস্থায়ী বনকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে

গণ্ডার শিং পাচারে জড়িত থাকার অভিযোগে কাজিরাঙ্গা জাতীয় উদ্যানে (কেএনপি) নিযুক্ত আরও দু’জন অস্থায়ী বনকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

শনিবার গ্রেপ্তার হওয়া এই দুই অস্থায়ী বনকর্মীর কাজীরাঙ্গা জাতীয় উদ্যান কর্তৃপক্ষ মহাআউট হিসাবে নিযুক্ত ছিল।

তাদের নাম জামেছর আলী ও ধানমনি রাভা।

তাদের গ্রেপ্তারের সাথে পার্কের মোট 7 জন অস্থায়ী শ্রমিককে গণ্ডার শিং পাচারের র‌্যাকেটের সাথে যুক্ত থাকার জন্য তদন্তকারী দল গ্রেপ্তার করেছে।

বন বিভাগ সূত্রে খবর, গন্ডার শিং পাচারে আরও বেশি লোকের জড়িত থাকার তথ্য সংগ্রহ করেছে।

আশা করা হচ্ছে আরও বেশি লোক বন বিভাগের ড্রাগনে নামবে।

গন্ডার হর্ন চোরাচালানে কাজিরাঙ্গা জাতীয় উদ্যানে কর্মরত লোকজনের সম্পৃক্ততা সম্প্রতি প্রকাশ পেয়েছে।

গণ্ডার শিং হত্যার ঘটনা নিয়ন্ত্রণে এলে গন্ডার শিং পাচারকারীদের একটি অংশ গোপনে পার্কের অস্থায়ী বনকর্মীদের জড়িত একটি নেটওয়ার্ক তৈরি করেছে।

কাজীরাঙ্গা ডিএফও, রমেশ কুমার গোগোয়ের নেতৃত্বে এই নেটওয়ার্কটি আলোকিত করা হয়েছে।

জাতীয় উদ্যানে নিযুক্ত অস্থায়ী বনকর্মীরা গণ্ডার শিং, যা গোপনে সংগ্রহ করা হয়, গন্ডার শিং পাচারকারীদের হাতে তুলে দেয়।

এই বিস্ফোরক ঘটনাটি বেসরকারি পর্যটনকেন্দ্রের লোকজন ও স্থানীয়দের গ্রেপ্তারের পরে প্রকাশিত হয়েছিল।

ডিএফও গোগোয়ের নেতৃত্বে পরিচালিত একটি অভিযানের সময় কাজিরাঙ্গা জাতীয় উদ্যানের গন্ডার শিং পাচারে অস্থায়ী বনকর্মীদের জড়িত থাকার সত্যতা পাওয়া যায়নি।