চীন তিব্বতে ব্রহ্মপুত্র নদের উপরে সুপার বাঁধ তৈরির পরিকল্পনা করেছে: রিপোর্ট

চীন তিব্বতে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার (এলএসি) নিকটবর্তী ইয়ারলুং জাংবো (ব্রহ্মপুত্র নদ) নদীর তলদেশে একটি বৃহত বাঁধ নির্মাণের পরিকল্পনা করেছে বলে জানা গেছে।

তিব্বত স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলে (টিএআর) উদ্ভূত, আন্তঃসীমান্ত ইয়ারলুং জাংবো অরুণাচল প্রদেশে প্রবাহিত হয়েছে যেখানে এটি সিয়াং এবং পরে ব্রহ্মপুত্র হিসাবে আসামে প্রবাহিত হয়।

প্রতিবেদন অনুসারে, এর জন্য একটি প্রস্তাব আগামী বছর থেকে কার্যকর করা হবে ১৪ তম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায়।

চীন ইয়ারলুং জাংবো নদীর উপর ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি ছোট বাঁধ তৈরি করেছে।

চীনের পাওয়ার কনস্ট্রাকশন কর্প কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান ইয়ান ঝিয়াং বলেছেন, চীন “ইয়ারলুং জাংবো নদীর তলদেশে জলবিদ্যুৎ শোষণ বাস্তবায়ন করবে”।

প্রকল্পটি জলের সম্পদ এবং গার্হস্থ্য সুরক্ষা বজায় রাখতে পারে গ্লোবাল টাইমস রিপোর্ট।

চায়না জলবিদ্যুৎ শিল্পের জন্য এটি একটি historicতিহাসিক সুযোগ হবে, ইতিহাসের সমান্তরালে নেই, “ইয়ান জলবিদ্যুৎ প্রকৌশল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ৪০ তম বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত সম্মেলনে বলেন।

বাঁধটির প্রাথমিক কাজটি ১ch ই অক্টোবর পাওয়ারচিনার মাধ্যমে টিআর সরকারের সাথে ১৪ তম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনার জন্য কৌশলগত সহযোগিতা চুক্তি স্বাক্ষরের মাধ্যমে শুরু হয়েছিল।

নতুন বাঁধ সংক্রান্ত সংবাদটি গত সপ্তাহে চীনের ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিসি) যুব লীগের একটি অফিসিয়াল সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে প্রকাশিত হয়েছিল।

ব্রহ্মপুত্রের বাঁধের প্রস্তাবগুলি ভারত এবং বাংলাদেশে, রিপরিয়ানিয়ান রাজ্যগুলিতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে এবং চীন তাদের স্বার্থকে মাথায় রাখবে বলে এই ধরনের উদ্বেগকে অস্বীকার করেছে।

গ্লোবাল টাইমস রিপোর্ট, চীন মেডোগ কাউন্টিতে যেখানে “ইয়ারলুং জাংবো গ্র্যান্ড ক্যানিয়ন” অবস্থিত, একটি “সুপার জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র” নির্মাণের পরিকল্পনা নিয়ে জল্পনা চলছে তা বছরের পর বছর ধরে ছড়িয়ে পড়ে।

মেডোগ হ’ল তিব্বতের শেষ কাউন্টি যা অরুণাচল প্রদেশের সীমানা।