ত্রিপুরার বিভিন্ন জায়গা থেকে পাঁচটি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে

বিভিন্ন স্থান থেকে মোট ৫ টি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে ত্রিপুরা মঙ্গলবারে.

একটি হত্যার মামলা হলেও অন্যটি আত্মহত্যার সন্দেহজনক মামলা।

নদীর জলে একটি মৃতদেহ পাওয়া গেছে এবং একজন বৃদ্ধের মৃতদেহ কৃষিজমিতে পড়ে থাকতে দেখা যায় এবং রাস্তার পাশে একটি নবজাতকের লাশ উদ্ধার করা হয়।

মৃতদেহগুলি দক্ষিণ ত্রিপুরার জোলাইবাড়ী, গোমতী জেলার আমারপুর এবং উনকোটি জেলার কৈলাশহর থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

উনকোটির পর্যটন স্পট থেকে বীর সিংহ নামে চিহ্নিত ৪০ বছরের বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

মাথা ফেটে যাওয়ার সাথে সাথে লোকটির শরীরে ভারী কিছু লেখা পড়ার আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

দেহের অন্যান্য অংশেও আঘাতের চিহ্ন ছিল।

কৈলাশাহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এর নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্ত শুরু করে।

তদন্তে একটি কুকুর স্কোয়াডও ব্যবহার করা হয়েছিল।

সন্দেহভাজন হিসাবে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

এবং তারা অন্য সন্দেহভাজনকে খুঁজছে।

বীর সিং উঙ্কোটি পাহাড়ের একটি মন্দিরে কাজ করতেন।

দক্ষিণ ত্রিপুরা জেলার জোলাইবাড়িতে দু’জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

কলসি মুখ এলাকায় রাখাল রায় বর্মনের মালিকানাধীন রাবার বাগানে ঝুলন্ত উত্তর জোলাইবাড়ীর হাসপাতাল পাড়ার বাসিন্দা ফণীন্দ্র সরকারের লাশ স্থানীয়দের নজরে পড়ে।

সরকারের বয়স 65 বছর।

সোমবার বিকেলে তিনি বাড়ি থেকে বের হয়ে বাড়ি ফিরেন না।

মঙ্গলবার সকালে কলসিরমুখ এলাকার লোকজন রাণী বাগানে ফণীন্দ্র সরকারের লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান।

এদিকে, স্থানীয়রা জোলাইবাড়ীর আশ্রম পাড়ার বাসিন্দা নিতাই ভৌমিকের মরদেহ পশ্চিম জোলাবাড়ীর কৃষ্ণ নামার এক কৃষিক্ষেত্রে পড়ে থাকতে দেখেন।

অপ্রাকৃত দু’জনের মৃত্যুর পরে পুলিশ সদস্যরা লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বৈখোড়া প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র এবং জোলাইবাড়ি সামাজিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যায়।

পুলিশ ঘটনার তদন্ত করছে।

সকালে কাইফাং এডিসি গ্রামের নবরাম বারী রোডের পাশে একটি নবজাতকের শিশুর লাশ পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার সকাল সাতটায় গোমতি নদী থেকে একটি অজ্ঞাত লাশও উদ্ধার করা হয়।

অমরপুরের কামারিয়াখোলা উত্তরে গোমতি নদীর তীরে একটি গাছে দেহ আটকে ছিল।

ঘটনাস্থল থেকে বীরগঞ্জ থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে।