মণিপুর আদালত তার গর্ভবতী বান্ধবীকে ধর্ষণ ও হত্যার দায়ে মানুষকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে

মণিপুরের একটি স্থানীয় আদালত দশ বছর আগে তার গর্ভবতী বান্ধবীকে ধর্ষণ ও হত্যার দায়ে 40 বছর বয়সী এক ব্যক্তির মৃত্যুদণ্ডের রায় দিয়েছে।

আইপিসির ৩C6 (ধর্ষণ), ৩০২ (হত্যা) এবং ৩১6 (একটি অনাগত সন্তানের মৃত্যুর কারণ) ধারায় দোষী সাব্যস্ত করার জন্য আদালত বুধবার মৃত্যুদণ্ডের রায় দিয়েছে।

এই মামলাটিকে ‘বিরল বিরল’ বলে আখ্যায়িত করে আদালত রায় দিয়েছে, “এ জাতীয় নিষ্ঠুরতা ও অমানবিক কাজটি নিশ্চিহ্ন হওয়ার প্রাপ্য এবং অন্য বিকল্প শাস্তি আটকাতে কোনও হ্রাসকারী কারণ নেই।”

মণিপুরের থোবল জেলার বাসিন্দা সিংকে বিশেষ বিচারপতি বিচারপতি এ নটুনেশ্বরী দেবী দোষী সাব্যস্ত করেছিলেন।

আদালত এই আসামির বিরুদ্ধে ৫০,০০০ টাকা জরিমানাও করেছেন।

আদেশে বলা হয়েছে, “আইরোম চোরেন সিংকে কেবল ৫০,০০০ টাকা জরিমানা দিয়ে মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে এবং দোষীকে ফাঁসি দেওয়া হবে,” আদেশে বলা হয়েছে।

আদালত ক্ষতিগ্রস্থ ভাইয়ের জন্য ১০ লক্ষ রুপি ক্ষতিপূরণ দেওয়ার সুপারিশ করেছে।

খবরে বলা হয়েছে, ২০১০ সালের জুনে সিং তাঁর গর্ভবতী বান্ধবীকে ধর্ষণ ও খুন করার অভিযোগ করেছিলেন।

তিনি মেয়েটিকে বিয়ে করতে বা সন্তান নিতে চাননি বলে তার মৃতদেহ ইম্ফলের একটি নদীতে ফেলে দেওয়া হয়েছিল।