মিজোরামের কোভিড 19 নিহতের সংখ্যা 4 এ পৌঁছেছে; রাষ্ট্র 25 নতুন ক্ষেত্রে রিপোর্ট

মিজোরাম চতুর্থ রিপোর্ট করেছেন কোভিড 19 একটি 34 বছর বয়সী ব্যক্তির মৃত্যুর সাথে মৃত্যু।

স্বাস্থ্য বিভাগের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, কোভিড ১৯ পজিটিভ রোগী শনিবার রাতে জোরাম মেডিকেল কলেজের (জেডএমসি) এই রোগে আক্রান্ত হন।

জোরাম মেডিকেল কলেজটি মিজোরামের একাকী কোভিড 19 ডেডিকেটেড হাসপাতাল।

ইন্টিগ্রেটেড ডিজিজ সার্ভিল্যান্স প্রোগ্রামের আইডিএসপি-র রাজ্য নোডাল অফিসার, ডা। পাচুউ লালমালসৌমা, যিনি কোভিড ১৯-এর স্বাস্থ্য বিভাগের মুখপাত্রও রয়েছেন, নিহত, আইজলের বাসিন্দা কে। লালনুন্টলুঙ্গা ২ 27 শে অক্টোবর কোভিড ১৯-এর জন্য পজিটিভ পরীক্ষা করেছিলেন।

ফিজিওথেরাপিস্ট লালনুন্টলুঙ্গা দক্ষিণ আইজলের বাউংককোনে একটি ক্লিনিক চালাচ্ছিলেন।

তিনি প্রথমে ডায়রিয়ার অভিযোগ করেছিলেন এবং আইজলের দুরতালংয়ের সিনড হাসপাতালে নিয়ে আসেন যেখানে তার বাবা কে। লালরেমওয়াইয়া স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ হিসাবে কাজ করেন।

তাকে কোভিড 19 ধরা পড়ে এবং 27 শে অক্টোবর ডায়াবেটিস পাওয়া গিয়েছিল।

লালনুন্টলুঙ্গা একই দিন জেডএমসি স্থানান্তরিত হয়েছিল এবং তাকে ভর্তি করা হয়েছিল ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট (আইসিইউ) সেখানে।

পচাউউ জানিয়েছেন, শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে এগারটার দিকে লালনুন্তলুঙ্গা মারা যান।

এদিকে, রবিবার ov জন মহিলা সহ আরও ২৫ জন লোক কোভিড ১৯-এর পক্ষে ইতিবাচক পরীক্ষা করেছেন, এই রাজ্যের সংখ্যা ৩৩৯৩৩ এ পৌঁছেছে।

রাজ্যের তথ্য ও জনসংযোগ দফতরের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ২৫ টি নতুন মামলার মধ্যে আইজল থেকে ২১ টি, লংটলাইয়ের ২ টি এবং লুঙ্গেলি ও সার্চশিপ জেলা থেকে একটি করে মামলা হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সক্রিয় মামলার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৩৪ এবং ২৮৮৫ জন উদ্ধার পেয়েছেন।

রবিবার বিভিন্ন কোভিড কেয়ার সেন্টার থেকে আরও পঁয়ত্রিশ জনকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

জেডএমসি কর্তৃক প্রকাশিত বুলেটিন অনুসারে, রবিবার ৩ জনকে আইসিইউতে স্থানান্তরিত করা হয়েছিল, যার মধ্যে ২ জনকে বায়ুচলাচলের সহায়তা দেওয়া হচ্ছে এবং একজনকে অক্সিজেন দেওয়া হচ্ছে।

কমপক্ষে 46 জন বর্তমানে কোভিড 19 ডেডিকেটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন যার মধ্যে 43 জন বিচ্ছিন্ন ওয়ার্ডে আছেন।

এ পর্যন্ত জেডএমসিতে চিকিৎসাধীন কমপক্ষে ৫ at৩ জন রোগীকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।